top of page

অনলাইন শিক্ষা সফরের সফল পরিসমাপ্তিসরকারি কর্মকর্তাদের সনদ প্রদান অনুষ্ঠান

Updated: Dec 6, 2022


অনলাইন শিক্ষা সফরের মাধ্যমে ই-সিটিজেন চার্টারের ওপর কোর্স সমাপ্তির পর সনদ প্রদানের জন্য অংশগ্রহণকারীরা ঢাকায় মিলিত হয়েছে


বিগত দুটি বছর; চিন্তার উন্মেষ, উদ্ভাবন এবং বিকল্প সমাধান খুঁজে বের করার ক্ষেত্রে আমাদের মানসিকতায় উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন নিয়ে এসেছে। প্ল্যাটফর্মস ফর ডায়ালগ (পিফরডি) পরিবর্তনশীল বৈশ্বিক এবং জাতীয় পরিস্থিতির সাথে ক্রমাগত অভিযোজন করে সফল ভাবে প্রকল্প কার্যক্রম বাস্তবায়নের জন্য বিভিন্ন উদ্ভাবনী পদ্ধতির সমন্বয় ও প্রয়োগ করছে। শারীরিক উপস্থিতির কর্মসূচিতে বিধিনিষেধ থাকা সত্ত্বেও, পিফরডি বিকল্প উপায়ে মূল কার্যক্রমগুলো বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে যাতে আমরা আমাদের লক্ষ্যগুলি পূরণ করতে পারি, যার একটি হচ্ছে সরকারের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে সামাজিক জবাবদিহি উপকরণগুলোর বাস্তবায়ন।


মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সাথে অংশীদারিত্বে পিফরডি, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের কর্মকর্তা এবং অন্যান্য সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য নেদারল্যান্ডে সেবা প্রদান প্রতিশ্রুতির ওপর একটি প্রশিক্ষণ কর্মসূচির পরিকল্পনা করেছিল। কোভিড অতিমারির কারণে কার্যক্রমটি অনলাইনে পরিচালনা করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এই অনলাইন শিক্ষা সফরের লক্ষ্য ছিল সরকারি কর্মকর্তাদের নেদারল্যান্ডসে ই-সিটিজেন চার্টার এবং বার্গার সার্ভিস কোড বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া সম্পর্কে জ্ঞান অর্জনে সহায়তা করা যাতে সরকারি কার্যক্রমের স্বচ্ছতা এবং নাগরিকদের জন্য সরকারি পরিষেবার মান উভয়ই উন্নত হয়।


শিক্ষা সফরটিকে অনলাইনে রূপান্তরিত করতে, পিফরডি মূল পরিকল্পনার কাঠামোকে ভিত্তি হিসেবে নিয়ে বিষয়বস্তুগুলোকে মিথস্ক্রিয়ামূলক অনলাইন সেশনে রূপান্তরিত করেছে। শেখার সুবিধার্থে, অংশগ্রহণকারীরা আমাদের প্রশিক্ষণ অংশীদার ডিজিলেরেন বিভি (Digileren BV)- এর শিখন ব্যাবস্থাপনা পদ্ধতির মাধ্যমে প্রতিটি বিষয় সম্পর্কে আগাম তথ্য পেয়েছে যা ইউট্রেকখ্ট (Utrecht) বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইন লার্নিং প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে পরিচালিত হয়েছে।


২০২১ সালের ৩১ মে থেকে ১৪ জুন পর্যন্ত অনলাইন শিক্ষা সফরটি পরিচালনা করা হয়। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারদের কার্যালয়, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ, স্থানীয় সরকার বিভাগ, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড (ডেসকো) এবং শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় থেকে ঊর্ধ্বতন পর্যায়ের ১২ জন কর্মকর্তার এতে অংশগ্রহণ করেন।


সম্প্রতি বাংলাদেশে মুখোমুখি অনুষ্ঠানগুলো পুনরায় শুরু হওয়ায়, পিফরডি ২০২২ সালের মে মাসে অংশগ্রহণকারীদের সাথে সমন্বয় করে একটি সনদ প্রদান অনুষ্ঠান আয়োজনের পরিকল্পনা করে।পরবর্তীতে১৪ জুন ২০২২ তারিখে ঢাকার ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলে সনদ প্রদান অনুষ্ঠানটি আয়োজন করা হয়।


পিফরডি এর প্রকল্প পরিচালক, উপ প্রকল্প পরিচালক, এবং দলনেতা প্রধান অতিথি জনাব শামসুল আরেফিন, সচিব, সমন্বয় ও সংস্কার, মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ কে স্বাগত জানান


অংশগ্রহণকারীদের সনদ প্রদানের পাশাপাশি, প্রশিক্ষণার্থীরা তাদের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন এবং কর্মশালা থেকে প্রাপ্ত জ্ঞান ভবিষ্যত পরিকল্পনায় অন্তর্ভুক্ত করার কথা জানান। জনাব মোঃ শামসুল আরেফিন, সচিব, সমন্বয় ও সংস্কার, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন । পিফরডি এর প্রকল্প পরিচালক মিস আয়েশা আক্তার, অতিরিক্ত সচিব, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, জনাব আর্সেন স্টেপানিয়ান, টিম লিডার, পিফরডি, এবং মিস তানিয়া নাদের, প্রোগ্রাম ম্যানেজার-গভর্নেন্স, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ করেন। এছাড়াও পিফরডি প্রকল্পের কর্মকর্তারা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথি জনাব শামসুল আরেফিন এবং বিশেষ অতিথি মিস তানিয়া নাদেরের কাছ থেকে সনদ গ্রহণ করছেন মিস নাইমা আফরোজ।


মিস নাইমা আফরোজ ইমা, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব, তার অভিজ্ঞতা তুলে ধরে বলেন, “ডিজিটাল লার্নিং প্ল্যাটফর্মের সাথে পরিচিত হওয়া শুরুতে আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জিং ছিল। পরে আমরা পদ্ধতিটির সাথে খাপ খাইয়ে নেই এবং প্রচলিত মুখোমুখি প্রশিক্ষণের মতো মিথস্ক্রিয়ার মাধ্যমে শেখা আমাদের জন্য সহজ হয়ে ওঠে। আমরা এই অর্জিত জ্ঞানকে ভবিষ্যতে কাজে লাগাতে চাই।”


মিস আয়েশা আক্তার পিফরডি প্রকল্পের কার্যক্রম এবং অর্জনের একটি সংক্ষিপ্ত বিবরণ দেন এবং সরকারি কর্মকর্তাদের সক্ষমতা বৃদ্ধি কার্যক্রমের গুরুত্ব তুলে ধরেন। টিম লিডার, মিঃ আর্সেন স্টেপ্যানিয়ান তার আলোচনায় পরিবর্তনশীল বৈশ্বিক পরিবেশ এবং ডিজিটাইজেশনকে শেখার ও প্রকল্প বাস্তবায়নের একটি কার্যকর বিকল্প হিসাবে এর ওপর গুরুত্ব দেন। তিনি বলেন যে, শিখন প্রক্রিয়ার সফল সমাপ্তি হল সংলাপ এবং বিকাশের চলমান প্রক্রিয়ার সূচনা মাত্র।


ইউরোপীয় ইউনিয়নের ডেলিগেশনের প্রোগ্রাম ম্যানেজার তানিয়া নাদের বলেন, “ইউরোপীয় ইউনিয়ন বাংলাদেশে গণতন্ত্রকে সুসংহত করনে সহায়তা করার জন্য সম্মানিত। পিফরডি প্রকল্প আমাদের সেই প্রচেষ্টায় একটি গুরুত্বপূর্ণ সংযোজন, যার মাধ্যমে বাংলাদেশী নাগরিক এবং প্রতিষ্ঠানগুলিকে আরও অন্তর্ভুক্তিমূলক, উন্মুক্ত এবং সমৃদ্ধ সমাজ গঠনে অবদান রাখতে সহায়তা করা যায়। এর কার্যকর একটি উদাহরণ হল সক্রিয় নাগরিক অংশগ্রহণের মাধ্যমে সেবা প্রদান প্রতিশ্রুতি নীতি বাস্তবায়নকে সমর্থন করা। আমি আনন্দিত যে শিখন বিনিময় কার্যক্রমে অংশগ্রহণকারীরা ইইউ সদস্য রাষ্ট্রগুলির একটি, নেদারল্যান্ডসের উদাহরণের সাথে পরিচিত হতে পেরেছে।"


মাননীয় প্রধান অতিথি জনাব শামসুল আরেফিন শিক্ষা সফরের প্রভাব এবং সরকারী কর্মকর্তাদের অন্তর্ভুক্ত করে পিফরডি-এর সক্ষমতা বৃদ্ধি কার্যক্রম কার্যকরভাবে ব্যবহারের জন্য আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি স্বীকার করেন যে প্রায় দুই বছর ধরে কোভিড -১৯ অতিমারির কারণে আন্তর্জাতিক ভ্রমণ এবং মুখোমুখি কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত হয়েছে। এই অতিমারি সকলকে সৃষ্টিশীল সমাধান খুঁজে বের করতে বাধ্য করেছে যা এই অনলাইন শিক্ষা সফরের স্পষ্টভাবে প্রদর্শিত হয়েছে। জনাব শামসুল আরেফিন বলেন,

“আমি আশাবাদী যে প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণকারীদের অর্জিত জ্ঞান বাংলাদেশে সামাজিক জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠায় এবং এসডিজি ১৬ অর্জনে কার্যকরভাবে ব্যবহার করা যাবে। আমি বিশ্বাস করি যে পিফরডি জনসাধারণের জন্য সামাজিক জবাবদিহি নীতি উপকরণগুলোর অভিগম্যতা তৈরিতে আরও অবদান রাখবে যাতে জনগণ বিভিন্ন সরকারী প্রতিষ্ঠান থেকে সহজে পরিষেবাগুলি গ্রহণ করতে পারে”

বক্তব্যের পর প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথি অংশগ্রহণকারীদের হাতে সনদপত্র তুলে দেন এবং পরে একটি ফটো সেশন অনুষ্ঠিত হয়।

সম্মানিত প্রধান অতিথি জনাব শামসুল আরেফিন, বিশেষ অতিথি মিসেস তানিয়া নাদের এবং পিফরডি প্রকল্প পরিচালক, মিস আয়েশা আক্তার অংশগ্রহণকারীদের হাতে সনদ তুলে দেন


এই প্রকাশনাটি ইউরোপীয় ইউনিয়নের আর্থিক সহায়তায় তৈরি। প্রকাশনার বিষয়বস্তুর দায়িত্ব প্ল্যাটফর্মস ফর ডায়ালগ প্রকল্পের। এটি ইউরোপীয় ইউনিয়নের মতামতকে প্রতিফলিত নাও করতে পারে।

10 views0 comments

Comments


bottom of page