top of page

সফল হল নাগরিক সনদ এবং অভিযোগ প্রতিকার বিষয়ে সরকারী কর্মকর্তাদের আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষণ


পিফরডি এর একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ হচ্ছে সরকারী কর্মকর্তা এবং সরকারী কর্মচারীদের সামাজিক জবাবদিহি নীতিমালার ওপর প্রশিক্ষণ প্রদান। প্রকল্পের এই ভিত্তিটি সরকারী কর্মচারীদের মধ্যে জবাবদিহিতার সংস্কৃতি তৈরি এবং বাংলাদেশের সরকারী খাতে দুর্নীতি দমন ও শুদ্ধতার চর্চা অন্তর্ভুক্ত করার একটি টেকসই পদ্ধতি প্রচারের উদ্দেশ্যে কাজ করছে।

সম্প্রতি, পিফরডি এই প্রেক্ষাপটে একটি গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক অতিক্রম করেছে। ‘নাগরিক সনদ এবং অভিযোগ প্রতিকার ব্যাবস্থা বিষয়ে বাংলাদেশে সরকারী কর্মকর্তাদের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে আন্তর্জাতিক শিক্ষণ’ শীর্ষক নেদারল্যান্ডস ভিত্তিক অনলাইন প্রশিক্ষণ সফলভাবে সম্পন্ন করা হয়েছে। সাম্প্রতিক লকডাউন এবং ভ্রমণ বিধিনিষেধের কারণে, পিফরডি এবং মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ নেদারল্যান্ডসে আমাদের অংশীদারদের সাথে একটি শিক্ষা সফরের মূল পরিকল্পনা থেকে সরে এসে ভার্চুয়াল প্রশিক্ষণ আয়োজন করে।এটি পিফরডি, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ এবং পিফরডি এর প্রাতিষ্ঠানিক অংশীদারদের মধ্যে সহযোগিতা এবং কথোপকথনের ফলাফল ছিল।

নেদারল্যান্ডের হেগে অনুষ্ঠিতব্য এই প্রশিক্ষণ ডিজিলেরেন এবং ইউট্রেক্ট বিশ্ববিদ্যালয়, ৩১ মে থেকে ১৪ জুনের মধ্যে অনলাইনে ৭ টি সেশনে সম্পন্ন করে। মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ, জেলা প্রশাসন কার্যালয়, সড়ক ও জনপথ বিভাগ, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়, কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ, ডেসকো এবং প্রানিসম্পদ অধিদপ্তর সহ সরকারের বিভিন্ন সংস্থা থেকে ১২ জন প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করে। ইউট্রেক্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনোভেটিভ ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম, বারকো (BARCO); অভিগম্যতা, ডিজিটাল সরকার, মানসম্পন্ন সেবা প্রদান, এবং নাগরিকদের সাথে কার্যকর যোগাযোগের ওপর ভার্চুয়াল সেশনগুলো পরিচালনা করে (সেশনের বিস্তারিত নিচে ডানে)।

১২ জন অংশগ্রহণকারীকে প্রশিক্ষণ শেষে সনদ প্রদান করা হয়। অংশগ্রহণকারীরা প্রশিক্ষণ নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন এবং কর্মশালাকে গড়ে ১০ এ ৭.৫ রেটিং প্রদান করেন। নতুন অনলাইন প্ল্যাটফর্মে ট্রেনিং হবার কারণে অংশগ্রহণকারীদের কাছে ব্যাপারটি চ্যালেঞ্জিং ছিল। এরপরও তারা কর্মশালাকে কার্যকর মনে করেছেন এবং এর মূল শিক্ষণগুলো অতিসত্বর বাস্তবায়নের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন। নাগরিক সনদের ওপর পরিচালিত কর্মশালা অংশগ্রহণকারীদের উদ্বুদ্ধ করেছে। এ বিষয়ে তারা জানান, সেই ইস্যুগুলো খুঁজে বের করার চেষ্টা তারা করবেন যেগুলোর উন্নয়ন করতে হবে; প্রচলিত সেবা প্রদান প্রক্রিয়া কার্যকর এবং দক্ষ করে তোলার জন্য ডিজিটাল টুল তৈরি করবেন; সেবাগ্রহীতাদের কল্যাণের জন্য ‘বার্জার লিঙ্ক’ – থ্রি স্টেপ এনগেজমেন্ট মডেল এবং প্রশিক্ষণ থেকে প্রাপ্ত জ্ঞান বাস্তবায়ন করবেন। এই কার্যপ্রণালী সেবা প্রদান উন্নয়নে সরকারের দৃঢ় প্রতিজ্ঞাকে প্রতিফলিত করে, বিশেষ করে নতুন টুল এবং প্রক্রিয়ার উদ্ভাবন যা কর্মশালায় উপস্থাপিত হয়েছে।


পিফরডি এবং মন্ত্রী পরিষদ বিভাগ ভবিষ্যতে প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণকারীদের জন্য ফল-আপ কর্মকাণ্ডের পরিকল্পনা রেখেছে যেখানে তারা সরকারী কর্মকর্তাদের জন্য অপারেশনাল গাইডলাইন হালনাগাদ করতে এবং দ্বিতীয় প্রজন্মের নাগরিক সনদ তৈরিতে তাদের নতুন দক্ষতা এবং জ্ঞান প্রয়োগ করতে পারবেন।


Comments


bottom of page