CITIZEN'S CHARTER

The Citizen's Charter is a social accountability tool designed to help citizens understand public service offerings so that they are empowered when seeking services from their local government offices. 

Right to information form fill up.png

তথ্য 

অধিকার

তথ্য অধিকার আইন, ২০০৯ হচ্ছে একটি সামাজিক জবাবদিহি নীতি। এর দ্বারা নাগরিকগণ সরকারি বা বেসরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে তথ্য পাওয়ার বৈধ অধিকার পায়।   

তথ্য অধিকার আইন, ২০০৯.

উদ্দেশ্য

তথ্য অধিকার (আরটিআই) আইন, ২০০৯ নাগরিকের অধিকার ও প্রাপ্য সেবা সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রাপ্তির ক্ষমতা নিশ্চিত করে। এক্ষেত্রে নাগরিক সরকারি, সুশীল সমাজ সংস্থা কিংবা বেসরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে তথ্যের আবেদন করতে পারে। এই নীতিটি সরকারি বেসরকারি-উভয় ধরনের প্রতিষ্ঠানেরই স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিতকরণে ভূমিকা রাখে। এই নীতি জনগণের অর্থায়নে পরিচালিত সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে তাদের কার্যক্রম সম্পর্কে জবাবদিহি করতে অবদান রাখে।   

তথ্য অধিকার আইন, ২০০৯ঃ

আরটিআই আইন “বাংলাদেশের আইনি ইতিহাসে একটি মাইলফলক” হিসেবে অভিহিত। এতে কয়েকটি উৎস থেকে জনগণের তথ্য প্রাপ্তির অধিকার প্রথমবারের মতো আইনি পরিমণ্ডলে সংরক্ষণ করা হয়েছে:

১. সরকারি নির্বাহী ও আইন প্রণয়নকারী শাখা (সরকারি মন্ত্রণালয় সহ)

২. এনজিও, আন্তর্জাতিক সংস্থা এবং অন্যান্য বেসরকারি সংস্থা সহ সরকারি অথবা বৈদেশিক সহায়তা গ্রহণকারী যেকোনো বেসরকারি প্রতিষ্ঠান

 

আরটিআই আইনের সাফল্যের মূল চাবিকাঠি হলো সমতা – এতে জনস্বার্থে দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ প্রতিষ্ঠান বা সংস্থার ক্ষেত্রে নাগরিকের কাছে জবাবদিহিতার সুযোগ রয়েছে

আরও আইন, অধ্যাদেশ, আরটিআই কর্মকাণ্ডের পরিস্থিতি সংক্রান্ত তথ্য জানতে তথ্য কমিশনের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

পিফরডি প্রকল্পের ফলাফল

তৃণমূল পর্যায়ে সুশীল সমাজ সংস্থাগুলোর সাথে কাজ করে প্লাটফর্মস ফর ডায়ালগ ২১টি জেলার ৬৩টি ইউনিয়নে সোশ্যাল একশন প্রজেক্ট এবং কমিউনিট ফোরামের মাধ্যমে তথ্য অধিকার সম্পর্কে প্রচারণা চালায়। এছাড়াও আমরা সুশীল সমাজ সংস্থা এবং সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য তথ্য অধিকার আইন, ২০০৯ এর ওপর প্রশিক্ষণের আয়োজন করেছি যাতে স্থানিয় জনগণ ও সরকারি কর্মকর্তাগণ সফলভাবে এ আইনটি ব্যবহার করতে করতে পারে।  

আমরা জনসাধারনকে 'সামাজিক জবাবদিহি নীতিমালা' ব্যবহার করতে উতসাহ দিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ছবি, তথ্যচিত্র এবং ভিডিওর মাধ্যমে ব্যাপক প্রচারণা চালিয়েছি। এর ফলে লক্ষ লক্ষ মানুষ তথ্য অধিকার আইন, ২০০৯ ও নিজ এলাকার উন্নয়নে এর ভূমিকা সম্পর্কে জানতে পেরেছে।    

পিফরডি প্রকল্প মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সাথে যৌথ উদ্যোগে পিএসএ ভিডিও তৈরি করেছে। এর দ্বারা মানুষ বুঝতে পেরেছে যে তথ্য অধিকার আইন কী, কীভাবে ব্যবহার করতে হয়, এবং কেন ব্যবহার করা প্রয়োজন। সম্পূর্ণ ভিডিওটি দেখতে নিচের লিংকটিতে ক্লিক করুন। 

নিউজলেটার পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

পিফরডির ত্রৈমাসিক নিউজলেটারটি পেতে সাইনআপ করুন। আমরা আমাদের প্রশিক্ষণ কর্মসূচি, সুশীল সমাজ সংস্থাগুলোর কার্যক্রম ও বিশেষ অনুষ্ঠানসমুহ সম্পর্কে আপনাকে জানিয়ে দেবো।    

যোগাযোগ করুন

আমাদের ঠিকানা

প্লাটফর্মস ফর ডায়ালগ, ব্রিটিশ কাউন্সিল হাউজ ১৩/বি, রোড ৭৫, গুলশান ০২, ঢাকা ১২১২ বাংলাদেশ 

আমাদের ইমেইল 

সোশ্যাল মিডিয়াতে আমাদের সাথে থাকুন

Funded by the

European Union

এ ওয়েবসাইটটি ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের অর্থায়নে নির্মিত ও পরিচালিত। এ ওয়েবসাইটের বিষয়াবলীর সব দায়ভার ব্রিটিশ কাউন্সিল বহন করে; এতে সার্বিকভাবে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের দৃষ্টিভঙ্গি প্রতিফলিত হয় না।

© 2021 by Platforms for Dialogue, British Council